গাইবান্ধায় বিআরটিএ অফিসে ঘুষ নেওয়ার ভিডিও ভাইরাল!

0
63
গাইবান্ধায় বিআরটিএ অফিসের ঘুষ গ্রহণের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

গাইবান্ধায় বিআরটিএ অফিসের ঘুষ গ্রহণের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার হরিরামপুর ইউনিয়ের যুবক ফরহাদ হোসেন গোপনে ঘুষ নেওয়ার ভিডিও ধারন করে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করেন। এরপরই ভাইরাল হয় ভিডিওটি। এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে।

ঘুষ লেনদেন

ভিডিও টি তে দেখতে পাবেন মোটরযান পরিদর্শক, মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান এর অ্যাসিস্ট্যান্ট আসাদ ঘুষ লেনদেন করছে, ভিডিও টি তে আরও দেখতে পাবেন বিআরটিএ অফিস, ফাইল র‍্যক , মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান এর অফিস, চেয়ার, লেনদেন এর সময় অফিসার বাহিরে ছিলেন।

Posted by Farhad Hossain on Friday, July 5, 2019

জানা গেছে, মাস দুয়েক আগে নতুন মোটরসাইকেল কেনেন জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার হরিরামপুর ইউনিয়ের যুবক ফরহাদ হোসেন। কিন্তু মোটরসাইকেলের লাইসেন্সের জন্য শো-রুমে অতিরিক্ত টাকা দাবি করলে ফরহাদ হোসেন সব কাগজপত্র নিয়ে ঈদুল ফিতরের দুই দিন আগে গাইবান্ধার বিআরটিএ অফিসে যান।

এ সময় কয়েক ঘণ্টা বসিয়ে রেখে মোটরযান পরিদর্শক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান লাইসেন্সের জন্য তার কাছে ৭০০ টাকা দাবি করেন। কিন্তু ফরহাদ টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানান। এছাড়া তিনি লক্ষ্য করেন প্রতিটি ফাইল বাবদ আমিনুল ইসলামের সহকারী আসাদ গোপনে অর্থ লেনদেন করছে। এসব ঘটনা স্মার্টফোনে ধারণ করেন ফরহাদ। পরে তিনি ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন।

গাইবান্ধায় বিআরটিএ অফিসের ঘুষ গ্রহণের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার হরিরামপুর ইউনিয়ের যুবক ফরহাদ হোসেন গোপনে ঘুষ নেওয়ার ভিডিও ধারন করে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করেন। এরপরই ভাইরাল হয় ভিডিওটি। এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, মাস দুয়েক আগে নতুন মোটরসাইকেল কেনেন জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার হরিরামপুর ইউনিয়ের যুবক ফরহাদ হোসেন। কিন্তু মোটরসাইকেলের লাইসেন্সের জন্য শো-রুমে অতিরিক্ত টাকা দাবি করলে ফরহাদ হোসেন সব কাগজপত্র নিয়ে ঈদুল ফিতরের দুই দিন আগে গাইবান্ধার বিআরটিএ অফিসে যান।

এ সময় কয়েক ঘণ্টা বসিয়ে রেখে মোটরযান পরিদর্শক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান লাইসেন্সের জন্য তার কাছে ৭০০ টাকা দাবি করেন। কিন্তু ফরহাদ টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানান। এছাড়া তিনি লক্ষ্য করেন প্রতিটি ফাইল বাবদ আমিনুল ইসলামের সহকারী আসাদ গোপনে অর্থ লেনদেন করছে। এসব ঘটনা স্মার্টফোনে ধারণ করেন ফরহাদ। পরে তিনি ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে মোটরযান পরিদর্শক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খানের সহকারী করমর্দন করার ফাঁকে ঘুষ গ্রহণ করে আমিনুল ইসলাম কক্ষে প্রবেশ করেন। এদিকে এ ভিডিও প্রকাশের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে। এমন ভিডিও প্রকাশ করায় প্রসংশায় ভাসছেন ফরহাদ। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হবে কিনা তা জানতে চাইছেন অনেকে।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে মোটরযান পরিদর্শক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খানের সহকারী করমর্দন করার ফাঁকে ঘুষ গ্রহণ করে আমিনুল ইসলাম কক্ষে প্রবেশ করেন। এদিকে এ ভিডিও প্রকাশের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে। এমন ভিডিও প্রকাশ করায় প্রসংশায় ভাসছেন ফরহাদ। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হবে কিনা তা জানতে চাইছেন অনেকে।

রিপ্লে করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here