ভৈরবে ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে নারীসহ দুজন আহত

সচেতন বার্তা, ২৪ জুলাই: ভৈরবে ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে নারীসহ দুজন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার সকাল ও রাতে শহরের ভৈরবপুর রফিকুল ইসলাম মহিলা কলেজের পূর্বপাশের রাস্তায় ও পৌর শহরের ঘোড়াকান্দা পলাশের মোড়ে পৃথক এ দুটি ঘটনা ঘটে।

আহত নারীর নাম ফারজানা বেগম। বাড়ি বাজিতপুর উপজেলায়। অন্যজনের নাম রাসেল। তিনি রাজমিস্ত্রির কাজ করেন। বাড়ি কিশোরগঞ্জের অষ্টগ্রাম উপজেলার হালিনগর গ্রামে।

স্থানীরা জানায়, রাতে ভৈরব রেলওয়ে স্টেশন থেকে বাজারে যাওয়ার পথে ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে ফারজানা বেগম গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা তাকে প্রথমে ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক অবস্থা খারাপ দেখে ফারজানাকে বাজিতপুর জহিরুল  ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান।

এর আগে সকাল ছয়টার দিকে শহরের ভৈরবপুর রফিকুল ইসলাম মহিলা কলেজের পূর্বপাশের রাস্তা থেকে রাজমিস্ত্রি রাসেলের মাথা ফাটিয়ে সাত হাজার টাকা ও একটি মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয় ছিনতাইকারীরা। ঘটনার পর আহত রাসেলের চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এসে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

জানা যায়, মাসখানেক আগে রাসেল রাজমিস্ত্রির কাজ করতে চট্টগ্রাম যান। সেখান থেকে ট্রেনে করে ভোরে ভৈরব স্টেশনে নেমে রিকশায় করে রফিকুল ইসলাম মহিলা কলেজ এলাকায় ভাইয়ের বাসায় যাচ্ছিলেন। পথে কলেজের পেছনে ছিনতাইকারীরা তার রিকশার গতিরোধ করে। এরপর হাতে থাকা একটি মেটালের তৈরি টর্চলাইট দিয়ে আঘাত করে তার মাথা ফাটিয়ে টাকা ও মোবাইল ফোনটি ছিনিয়ে নেয় ছিনতাইকারীরা।

এ সময় রাসেলের চিৎকারে ফজরের নামাজ শেষে মসজিদ থেকে বের হওয়া কয়েকজন মুসল্লি এগিয়ে আসলে ছিনতাইকারীরা তাদের ব্যবহৃত টর্চলাইট ও জুতা ফেলে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ করবেন বলে জানান রাসেল।

ভৈরব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোখলেছুর রহমান জানান, ‘একই দিনে দুটি ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে বলে খবর পেয়েছি। পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। অভিযোগ পেলে এ ব্যাপারে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

রিপ্লে করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here