সাতক্ষীরায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ, গুলিবিদ্ধসহ আহত ৩০

0
46
সংঘর্ষে পাঁচজন গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন। প্রায় দু’ঘণ্টাব্যাপী চলমান এ সংঘর্ষ পুলিশ রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ছবিঃ প্রতিকী।

সাতক্ষীরার শ্যামনগরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে রবিবার দুপুর ২টার দিকে উপজেলার বংশীপুর বাসস্ট্যান্ডে ঈশ্বরীপর ইউ পি চেয়রেম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শোকর আলী এবং উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সদ্য আওয়ামী লীগে যোগদানকারী নেতা সাদেকুর রহমান সাদেমের সমর্থকদের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের এই সংঘর্ষে পাঁচজন গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন। প্রায় দু’ঘণ্টাব্যাপী চলমান এ সংঘর্ষ পুলিশ রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আহতদের মধ্যে আক্তার আলী, আব্দুস সালাম, আব্দুল আ লিম, আবু সাইদ, নুর মোহাম্মদ, আবদুল বারেক, আওসাফুর, সফিকুল ও শাহ আলমের নাম জানা গেছে। এদের মধ্যে গুলিবিদ্ধ আক্তার আলী, আব্দুস সালাম, আব্দুল আলিম, আবু সাইদ, নুর মোহাম্মদকে প্রথমে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাদেরকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, ভোরে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শোকর আলীর সমর্থক আব্দুল আলিম সাদেকুর রহমানের সমর্থক আসমতকে মারধর করে। এ ঘটনার প্রেক্ষিতে দুপুরে উভয়পক্ষের সমর্থকরা লাঠিসোটা নিয়ে বংশীপুর বাসস্ট্যান্ডে অবস্থান নেয়। পরে একপক্ষ অপরপক্ষকে লক্ষ করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে তাদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। দু’ঘণ্টা ধরে চলা এ সংঘর্ষে উভয়পক্ষের অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছে।

শ্যামনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কমকর্ত (ওসি) আনিসুর রহমান জানান, অধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে উভয় গ্রুপের ২০ জন আহত হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ও ছত্রভঙ্গ করতে ২৯ রাউন্ড রাবার বুলেট ছোড়া হয়। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। তবে সংর্ঘষের সময় গোলাগুলি হয়েছে কি তা আমার জানা নেই। তবে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ ও লাঠি সোটা নিয়ে সংঘর্ষ হয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন আছে।

রিপ্লে করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here