আবরার ফাহাদ হত্যা:

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে উত্তাল বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়

মঙ্গলবার বিকেল সোয়া ৫টার দিকে প্রধান ফটকে তালা দেওয়া হয়। এর আগে চলতি শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা স্থগিতসহ সাত দফা দাবি জানান আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় উত্তাল বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট)। অবিরাম আন্দোলন চলছে শিক্ষার্থীদের। সোমবার হত্যাকাণ্ডর থেকে এখনও ক্যাম্পাসে আসেননি উপাচার্য অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম।

ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা বারবার উপচার্যের সঙ্গে সাক্ষাতের কথা বললেও তা আমলে নেননি হল প্রাধ্যক্ষ। আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা মঙ্গলবার বিকেল ৫টার মধ্যে উপাচার্যকে ক্যাম্পাসে আসার আলটিমেটাম দেন। সে সময়ও পেরিয়ে গেছে। এতে ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা বুয়েটের প্রধান ফটকে তালা দিয়ে ভিসির কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করছেন।

একটি সূত্র জানিয়েছে, কার্যালয়ে ভেতরে হল প্রভোস্টদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছেন ভিসি।

মঙ্গলবার বিকেল সোয়া ৫টার দিকে প্রধান ফটকে তালা দেওয়া হয়। এর আগে চলতি শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা স্থগিতসহ সাত দফা দাবি জানান আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

দাবিগুলো মধ্যে একটি ছিল- হত্যাকাণ্ডের ঘটনার পর ৩০ ঘণ্টা পার হলেও বুয়েট ভিসি ঘটনাস্থলে উপস্থিত না হওয়ার বিষয়ে মঙ্গলবার বিকেল পাঁচটার মধ্যে তার জবাবদিহি নিশ্চিত করা।

রোববার রাত ৩টার দিকে বুয়েটের শেরেবাংলা হলের দোতলায় ওঠার সিঁড়ির মাঝ থেকে আবরারের লাশ উদ্ধার করে চকবাজার থানা পুলিশ। জানা যায়, ওই রাতে হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে আবরারকে পেটান বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের কিছু নেতা।

আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকসহ ১০ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মামলা হয়েছে এই ১০জনসহ ১৯ জনের বিরুদ্ধে। ১০ জনকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।

রিপ্লে করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here