মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী বলেছেন:

স্বাধীনতা দিবসে মুক্তিযোদ্ধাদের চুড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হবে

0
112

আগামী ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসে মুক্তিযোদ্ধাদের চুড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হবে বলে জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আ ক ম মোজাম্মেল হক। তবে যাদের ব্যাপারে তদন্ত কার্যক্রম চলছে, তারা এ তালিকা থেকে আপাতত বাদ থাকবেন। তদন্ত শেষে যারা মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে বিবেচিত হবেন, পরবর্তীতে তারা তালিকায় যুক্ত হবেন।

শনিবার বিকেলে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের কড্ডা এলাকায় সামিট গাজীপুর-২ পাওয়ার লিমিটেডের সহযোগিতায় কালাকৈর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নবনির্মিত ভবন নির্মাণ ও হস্তান্তর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দিয়ে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, আগে যে তালিকা করা হয়েছিল সেখানে ভুলক্রমে যারা আওতাভূক্ত নন তাদের নাম এসেছে, আবার যাদের নাম আওতাভূক্ত হওয়ার কথা তাদের অনেকের নাম বাদ পড়েছে। সেজন্য আমরা তালিকা প্রকাশের কাজ ৩ সপ্তাহ পিছিয়ে দিয়েছি, এ মাসের ৩০ তারিখে সেটা করা হবে। কারো নাম ভুলক্রমে বাদ গেলে তিনি যদি সেটি আমাদের নজরে আনেন তবে তা সংশোধন করব। এরপর ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহে তালিকা প্রকাশ করে জাতির সামনে সেটি উপস্থাপন করা হবে, আপত্তির গ্রহণের জন্য ৩০ দিন সময় দেয়া হবে। আপত্তি না থাকলে ২৮ ফেব্রুয়ারি মধ্যে আমরা চূড়ান্ত খসড়া তালিকা প্রকাশ করব। এরপর আগামী ২৬ মার্চ আমরা মুক্তিযোদ্ধাদের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করব ইনশাল্লাহ। কারো ব্যাপারে যদি তদন্তাধীন থাকে সেই তদন্ত নিস্পত্তির পর তারা যদি মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে বিবেচিত হন তবে তারা সংযুক্ত হবেন বলে জানান মন্ত্রী।

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর খোরশেদ আলম সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন আওয়ামীলীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য লে. কর্ণেল (অব.) মোহাম্মদ ফারুক খান, সিটি মেয়র মো. জাহাঙ্গীর আলম, সামিট গ্রুপের কর্মকর্তা মোজাম্মেল হোসেন, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোফাজ্জল হোসেন প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রমাণ করেছেন বাঙ্গালী জাতিকে কেউ দাবায়ে রাখতে পারবেনা। নানা প্রতিকূলতার মধ্য দিয়ে তিনি পদ্মা সেতুসহ নানা উন্নয়ন কাজ ইতোমধ্যে সম্পন্ন করেছেন। গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনকেও আধূনিক ও গ্রীণ সিটি করার কার্যক্রম এগিয়ে চলছে।

সাবেক মন্ত্রী লে. কর্ণেল (অব.) মোহাম্মদ ফারুক খান বলেন, শেখ হাসিনার সরকার শিক্ষার উপর সবচেয়ে বেশী গুরুত্ব দিয়ে কাজ করছেন। শেখ হাসিনার নেতৃত্বের কারণে বাংলাদেশ বিশে^র কাছে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিনত হয়েছে। বাংলাদেশ শীঘ্রই বিশে^র উন্নত ৩০ দেশের তালিকায় স্থান করে নিবে। দেশে গ্রাম ও শহরের ভেদাভেদ থাকবে না। আমরা সে লক্ষ্য নিয়েই এগিয়ে যাচ্ছি।

এর আগে মন্ত্রী ফিতা কেটে ওই স্কুলের নবনির্মিত ভবনের উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন ওয়ার্ডেরকাউন্সিলর, শিক্ষাবিদ, আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা অংশ গ্রহণ করেন।

আয়োজকরা জানান, প্রায় ৫ কোটি ৫৭ লাখ টাকা ব্যায়ে সামিট গ্রুপের পৃষ্ঠপোষকতায় তিনতলা বিশিষ্ট এ স্কুল ভবনটি নির্মাণ করা হয়েছে। বিদ্যালয়ে সাইন্স ল্যাব ও কম্পিউটার ল্যাবের জন্য আলাদা কক্ষসহ ১০টি শ্রেণী কক্ষ, গ্রন্থাগার, ক্যান্টিন, অভিভাবকদের জন্য বিশ্রামাগারসহ আধুনিক সুযোগ সুবিধা ও শিক্ষার অন্যান্য সুবিধাদি রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here