একাধিক আলোচিত মামলায় দন্ডিত অপরাধী:

বিএনপি নেতা হারিছ চৌধুরীকে ধরতে রেড অ্যালার্ট সিআইডির

0
67
হারিছ চৌধুরী। ফাইল ছবি

বিএনপি নেতা ও চার দলীয় জোট সরকারের প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরীকে ধরতে রেড অ্যালার্ট জারি করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলা, কিবরিয়া হত্যা মামলাসহ ১০ ট্রাক অস্ত্র মামলার দণ্ডিত এই নেতা বিদেশে বহাল তবিয়তে ঘুরে বেড়াচ্ছেন বলে জানিয়েছে সংস্থাটি। তবে তিনি ঠিক কোথায় আছেন, তা স্পষ্ট করতে পারেনি তারা।

প্রসঙ্গত, ২০০৭ সালের ১১ জানুয়ারি সেনাসমর্থিত সরকার দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ঝটিকা অভিযান শুরু করলে আত্মগোপনে চলে যান হারিছ চৌধুরী। প্রথমে কিছুদিন হবিগঞ্জে আত্মগোপনে ছিলেন। এরপর আসেন সিলেটে। সে সময় দুদকের শীর্ষ দুর্নীতিবাজদের তালিকায় ওঠে আসে তার নাম। তখনই দেশ ছেড়ে পালানোর সিদ্ধান্ত নেন তিনি।

২০০৭ সালে ২৯ জানুয়ারি সিলেটের জকিগঞ্জ সীমান্ত দিয়ে নানারবাড়ি ভারতের করিমগঞ্জে পাড়ি জমান হারিছ চৌধুরী। এর কয়েকদিন পর তার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র, বস্তায় করে টাকা উত্তরকূল সীমান্ত দিয়ে ভারতে পাঠানো হয়।

বিভিন্ন সূত্রে সে সময়ই জানা যায় ভারত থেকে তিনি যুক্তরাজ্যে পাড়ি জমান। এরপর সেখান থেকে ইরানে তার ভাই আবদুল মুকিত চৌধুরীর কাছে যান হারিছ। তারপর আর সেই ফেরারী আসামী হারিছ সাহেবের সঠিক হদিস মেলেনি।

২০১৮ সালের আগষ্টে ইন্টারপোলের রেড নোটিশের তালিকায় অন্যান্য অপরাধীদের সাথে এই হারিছ চৌধুরীর নাম অন্তভূক্ত হয়। সংস্থাটির ওয়েবসাইডেও অপরাধীর তালিকায় রয়েছে তার নাম ও ছবি।

সিআইডির এডিশনাল ডিআইজি খন্দকার রফিকুল ইসলাম বলেন, বহাল তবিয়তে সবার চোখকে ফাঁকি দিয়ে দেশের বাইরে জায়গা বদল করে করে ঘুরে বেড়াচ্ছেন, বিএনপির নেতা হারিছ চৌধুরী।  এর আগেও ২০১৫ সালে তাকে ধরতে রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়। কিন্তু সে চেষ্টা কাজে আসেনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here