জাতিসংঘের সামনে পরস্পর বিরোধী সমাবেশ আ’লীগ-বিএনপির

0
63
সংগৃহীত ছবি।

সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে পুলিশ বেষ্টনীর ভেতরে জাতিসংঘের সামনে পরস্পর-বিরোধী সমাবেশ করলো যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ এবং যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি।

২৪ সেপ্টেম্বর শুক্রবার দুপুরে জাতিসংঘের চলতি ৭৬তম অধিবেশনে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বক্তব্য প্রদানের পক্ষে শান্তি সমাবেশ এবং বিপক্ষে ব্যাপক বিক্ষোভের পূর্বঘোষিত কর্মসূচি নিয়ে টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছিল। বাস্তবে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনাও ঘটেনি। তবে গগনবিদারি স্লোগানে গোটা এলাকা প্রকম্পিত হয়েছে।

জয় বাংলা-জয় বঙ্গবন্ধু স্লোগানে বিএনপির জিন্দাবাদ স্লোগান চাপা পড়ে যায়। তুমুল এই স্লোগান-যুদ্ধের সময় মধ্যখানে অবস্থান নেয়া নিউইয়র্কের পুলিশ কিংকর্তব্যবিমূঢ় হলেও হাস্যরসাত্মক আমেজে ছিলেন। আওয়ামী লীগ এবং বিএনপির নামও তারা মুখস্ত করেছেন স্লোগানের তালে তালে।

জেএফকে এয়ারপোর্টের ন্যায় জাতিসংঘের সামনের এই কর্মসূচিতেও আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন, শ্রমিক লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীর সংখ্যা বেশি ছিল। বোস্টন, পেনসিলভেনিয়া, নিউ জার্সি, আরকানসাস, কানেকটিকাট থেকেও এসেছিলেন আওয়ামী পরিবারের সদস্যরা।

শেখ হাসিনাকে বিশ্বনেতা অভিহিত করে দেয়া স্লোগানে নেতৃত্ব প্রদানকারিগণের মধ্যে ছিলেন সিদ্দিকুর রহমান, এম এ সালাম, ড. প্রদীপ কর, জাকারিয়া চৌধুরী, মিসবাহ আহমেদ, ফরিদ আলম, আব্দুল কাদের মিয়া, কাজী কয়েস, আব্দুর রহিম বাদশা, আবুল মনসুর, সৈয়দ বসারত আলী, শাহীন আজমল, হাজী এনাম, সুব্রত তালুকদার, আজিজুল হক খোকন, দরুদ মিয়া রনেল, মোর্শেদা জামান, ইকবাল ইউসুফ, রহিম নিহাল, আবু তাহের, নাজিম উদ্দিন, নূরল আমিন বাবু প্রমুখ। যুবলীগের নেতৃবৃন্দের মধ্যে ছিলেন জামাল হোসেন, খন্দকার জাহিদ এবং আবরার সীমনও।

অপরদিকে, বিএনপি, যুবদল, জাসাস, ছাত্রদলের বিক্ষোভে উপস্থিত নেতৃবৃন্দের মধ্যে ছিলেন বেবী নাজনীন, আশিক রহমান, গিয়াস আহমেদ, আলহাজ্ব বাবরউদ্দিন, জিল্লুর রহমান জিল্লু মিল্টন ভূইয়া, মোশারফ হোসেন সবুজ, গোলাম ফারুক শাহীন, হাবিবুর রহমান সেলিম রেজা, আবু তাহের, এম এ বাতিন, আলহাজ্ব মাহফুজুল মাওলা নান্নু, মাওলানা অলিঊল্লাহ মোহাম্মদ আতিকুর রহমান, সাঈদুর রহমান সাঈদ, জাকির এইচ চৌধুরী, আবু সাঈদ আহমেদ, আমানত হোসেন, জসীমউদ্দিন ভিপি, জসীম ভূইয়া, কাজী আসাদুল্লাহ, সোহরাব হোসেন, শাহাদৎ হোসেন রাজু, নীরা রাব্বানী, কাওসার আহমেদ, জাহাঙ্গির সোহরাওয়ার্দি, রুহুল আমিন নাসির, মাজহারুল ইসলাম জনী প্রমুখ।

বিএনপি ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা নিজ নিজ কর্মসূচিতে বিরতি নিয়ে জুমআর নামাজ আদায় করেছেন একইস্থানে। এরপর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে অংশগ্রহণকারিগণের মধ্যে কলা এবং ক্রুশান বিতরণ করা হয়। অপরদিকে, বিএনপির সমর্থকদের মধ্যে বিরিয়ানির প্যাকেট বিতরণ করা হয়েছে।

এই বিক্ষোভ কর্মসূচির সমর্থনে এবং বেগম খালেদা জিয়ার স্থায়ী মুক্তি দাবিতে জ্যাকসন হাইটসে নবান্ন পার্টি সেন্টারে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির ব্যানারে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে ছিলেন অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন, আকতার হোসেন বাদল, রফিকুল ইসলাম ডালিম প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here