ত্বকের সমস্যা দূর করতে পারে এক টুকরো বরফ

0
28

ত্বকে আইস কিউব প্রয়োগ নতুন কিছু নয়, খুবই প্রচলিত এবং জনপ্রিয় একটি পদ্ধতি। ত্বক ভাল রাখতে বরফ খুবই কার্যকরী। বিশেষ করে, গ্রীষ্মকালে রোদের তাপ, অতিরিক্ত ঘাম ও গরমের কারণে ত্বকে নানান সমস্যা দেখা দেয়। তাই এইসময় ত্বকে বরফ বা আইস কিউবের ব্যবহার, আপনার হারিয়ে যাওয়া গ্লো ফিরিয়ে দিতে পারে, ত্বককে বিভিন্ন সমস্যা থেকে মুক্ত করতে পারে।

আইস কিউব কী ত্বকের জন্য উপকারি? আইস কিউব ত্বকের জন্য খুবই উপকারি। ব্যস্ত দিনের শেষে স্ট্রেস রিলিফের জন্য একটু আইস কিউব ত্বকে ঘষুন, আরাম পাবেন। তরতাজা অনুভব করবেন। এটি মুখের ত্বকের রক্ত সঞ্চালন বাড়ায়, ত্বককে উজ্জ্বল করে তোলে। আইস কিউব দিয়ে প্রতিদিন কিছুক্ষণ গোটা মুখ এবং গলায় বৃত্তাকারে ম্যাসাজ করতে পারেন।

ত্বকে আইস কিউব ব্যবহারের উপকারিতা বিশুদ্ধ জল আমাদের স্বাস্থ্য, বিশেষ করে ত্বকের জন্য খুবই উপকারি। এটি আমাদের শরীর থেকে সমস্ত টক্সিন বের করে। ঠিক একইভাবে আইস কিউবও কাজ করে, এটি আমাদের ত্বককে পরিষ্কার করে দেয়। তাহলে আসুন জেনে নেওয়া যাক, ত্বকে আইস কিউব ব্যবহারের উপকারিতা –

১) ঝকঝকে ত্বক উজ্জ্বল চকচকে ত্বক কে না চায়! ত্বকে আইস কিউব দিয়ে মালিশ করলে, ত্বকের রক্ত সঞ্চালন উন্নত হয়, যা ত্বককে উজ্জ্বল ও ঝকঝকে করে তোলে।

২) ডার্ক সার্কেল দূর করে নিয়মিত মুখে আইস প্রয়োগ করলে, তা ডার্ক সার্কেল কম করতে সাহায্য করে। সবচেয়ে ভালো হয় যদি আপনি গোলাপ জল এবং শসার রস দিয়ে তৈরি আইস কিউব ব্যবহার করেন। এর জন্য কিছুটা গোলাপ জল ফোটান এবং এতে শশার রস মেশান। এই মিশ্রণটি ডিপ ফ্রিজে রেখে দিন। এরপর এই আইস কিউব আপনার চোখের নীচে ও চারপাশে অ্যাপ্লাই করুন। এটা বেশ কিছুদিন করুন।

৩) আই ব্যাগ দূর করে চোখের নীচে অনেক সময় অতিরিক্ত তরল জমে, ফলে চোখে ফোলা ভাব দেখা যায়। এই ফোলাভাব দূর করার জন্য আইস কিউব ব্যবহার করা যেতে পারে। বৃত্তাকারভাবে চোখের চারিদিকে আইস কিউব দিয়ে ভালো করে মালিশ করলে ধীরে ধীরে চোখের ফোলা ভাব কমে যাবে।

৫) ব্রণ, ঘামাচি ও চুলকানি কমাতে সাহায্য করে ব্রণর সমস্যায় ভুগছেন? গরমে খুব ঘামাচি, চুলকানি হচ্ছে? হতাশ হবেন না। ব্রণর উপর আইস কিউব ম্যাজিকের মতন কাজ করে। আইস কিউব ত্বকের তেল উৎপাদন নিয়ন্ত্রণ করে। এটি ব্রণর ফোলা ভাব ও ব্যথা কমাতেও সাহায্য করে। এছাড়াও, যারা গরমে এই ধরনের চর্ম রোগে ভুগছেন, তারা সেই স্থানগুলিতে একটি সুতির কাপড়ে করে বরফ নিয়ে ঘষুন। দেখবেন ঘামাচি, চুলকানি বা যদি ফুসকুড়ি হয়, তা কমে যাবে।

৬) সানবার্ন কমায় গরমে রোদের তাপে ত্বক সানবার্ন হওয়া খুবই স্বাভাবিক ঘটনা। সানবার্ন হওয়া জায়গাগুলিতে আইস কিউব ঘষলে ম্যাজিকের মতো কাজ করে! এতে ত্বকের লালচে ভাব এবং প্রদাহ কমে। নিয়মিত ব্যবহার করুন, ট্যান থেকে মুক্তি পাবেন।

৭) ত্বক এক্সফোলিয়েট করে ত্বক এক্সফোলিয়েট করার জন্য বাজারের কেমিক্যালযুক্ত প্রোডাক্ট না ব্যবহার করাই ভাল। বাড়িতেই দুধ দিয়ে তৈরি আইস কিউব ব্যবহার করুন। দুধে ল্যাকটিক অ্যাসিড থাকে, যা ডেড স্কিন পরিষ্কার করতে সাহায্য করে। ফলে ত্বক উজ্জ্বল ও মসৃণ হয়। সূত্রঃ বল্ড স্কাই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here