সানস্ক্রিন কেনার সময় যে বিষয়গুলি অবশ্যই খেয়াল রাখবেন

0
74
ফাইল ছবি।

ত্বকের যত্নে অনেক মহিলাই সানস্ক্রিন ব্যবহার করেন। সূর্যের ক্ষতিকারক রশ্মি থেকে বাঁচাতে সানস্ক্রিন খুবই উপকারি। সাধারণত ঘরের বাইরে বেরোনোর আগেই আমরা সানস্ক্রিন ব্যবহার করে থাকি। সানস্ক্রিন ব্যবহারের ফলে ত্বকের ট্যান, রিঙ্কেলস থেকে অনেকটাই দূরে থাকা যায়।

তবে সানস্ক্রিন কেনার সময় নির্দিষ্ট কিছু বিষয়ের দিকে অবশ্যই খেয়াল রাখা উচিত, নাহলে ত্বকের সমস্যা দেখা দিতে পারে। আসুন জেনে নিই সানস্ক্রিন কেনার সময় কোন কোন বিষয় মাথায় রাখা উচিত।

সানস্ক্রিন সবসময় জেল, লোশন এবং ক্রিম আকারেই ব্যবহার করা ভাল। সানস্ক্রিন স্প্রে ব্যবহার না করাই ভাল। সানস্ক্রিন স্প্রে ব্যবহার করলে ত্বকে সঠিকভাবে সানস্ক্রিন লাগে না। স্প্রে মিস্ট-এর আকারে ত্বকে পৌঁছায়, তাই ত্বকে সানস্ক্রিন সঠিকভাবে সেট হয়েছে কি না তা বোঝা কঠিন। তাই সবসময় চেষ্টা করবেন জেল, লোশন এবং ক্রিমের আকারে সানস্ক্রিন ব্যবহার করা।

মেয়াদ শেষ হওয়ার তারিখ দেখুন। সাধারণত প্রত্যেক মহিলাই মেয়াদ শেষ হওয়ার তারিখ দেখে মেকআপের পণ্য কিনে থাকেন। সানস্ক্রিনের ক্ষেত্রেই এই নিয়ম মেনে চলা উচিত। কখনও কখনও সানস্ক্রিন এক্সপায়ার হওয়ার আগেই নষ্ট হয়ে যায়। তাই সানস্ক্রিন কেনার সময় কেবল মেয়াদ শেষ হওয়ার তারিখ নয়, সানস্ক্রিনের প্রস্তুতকারকের তারিখও পরীক্ষা করুন।

SPF যুক্ত সানস্ক্রিন কিনুন। সূর্যের রশ্মির কারণে শুধু ত্বকে ট্যান পড়ে না, পাশাপাশি বলিরেখাও দেখা দেয়। দীর্ঘক্ষণ সূর্যের সংস্পর্শে থাকার কারণে মুখে বলিরেখা দেখা দেয়। তাই ত্বকের যত্নের জন্য সানস্ক্রিনের এসপিএফ অবশ্যই চেক করুন। এসপিএফ নম্বর সূর্যের রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষা করে।

যাদের ত্বক তৈলাক্ত তাদের উচিত ওয়াটার বেসড সানস্ক্রিন ব্যবহার করা। ওয়াটার বেসড সানস্ক্রিন লাইটওয়েট হয়, যা স্কিন ব্রেকআউট হতে দেবে না। তৈলাক্ত ত্বকে গ্লো-এর জন্য ওয়াটার বেসড সানস্ক্রিন সবচেয়ে ভাল হতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here