পূজামণ্ডপে হামলার প্রতিবাদে শাহবাগ অবরোধ

0
103
সংগৃহীত ছবি।

দুর্গাপূজায় ধর্ম অবমাননার অভিযোগে দেশের বিভিন্ন স্থানে মন্দিরে-মণ্ডপে হামলার ঘটনার প্রতিবাদে রাজধানীর শাহবাগ মোড় অবরোধ করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের একাংশ।

এসময় তারা সকল ধর্মের মানুষকে সহিংসতা তৈরি না করে মানবতার কল্যাণে এক হওয়ার আহ্বান জানান। আবার হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান এক হয়ে এই অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে এক হয়ে আবারও দেশ মুক্ত করতে হবে বলে জানান প্রতিবাদীরা। এসময় তারা মণ্ডপ ভাঙচুরের সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত শাস্তি দাবি করেন।

সোমবার (১৮ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে প্রতিবাদী শিক্ষার্থীরা শাহবাগ মোড়ে অবস্থান নেওয়ার আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় জড়ো হন জগন্নাথ হলসহ বিভিন্ন হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা। সেখান থেকে তারা মিছিল নিয়ে শাহবাগ মোড়ে আসেন।

অবরোধের কারণে শাহবাগ থেকে পল্টন, সায়েন্স ল্যাব, বাংলামোটর ও টিএসসি অভিমুখী সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতে মানুষের ভোগান্তিও বাড়ছে।

এসময় সমাবেশে বক্তারা বলেন, যারা এ কাজগুলো করছে তারা দেশের ক্ষতি চায়। দেশের হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান এক হয়ে থাকুক সেটা তারা চায় না। সবকিছুর আগে ধর্মান্ধতা দূর কারা প্রয়োজন। তা না হলে নিরসণ সম্ভব না। ১৯৫২ সাল থেকে শুরু করে ৭১ পর্যন্ত তরুণরাই এগিয়ে এসেছিল। এবারও তাদের এগিয়ে আসতে হবে।

অপর এক আন্দেলনকারী বলেন, রামু, নাসিরনগরের ঘটনায় কোনো বিচার না হওয়ায় এই ঘটানগুলো বেশি ঘটছে। দোষীদের খুব দ্রুত শাস্তি দিতে হবে। তা না হওয়া পর্যন্ত আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাবো।

ঘটনার জের ধরে গত বুধবার থেকে দেশের অন্তত ১০ জেলায় পূজামণ্ডপ, মন্দিরসহ হিন্দুদের বাসাবাড়ি ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এসব হামলার ঘটনায় ২৮টি মামলায় অজ্ঞাতসহ ৯ হাজার ৫২৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। মামলায় এ পর্যন্ত ২২৯ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের মধ্যে জামায়াত-বিএনপির কয়েকজন নেতাও আছেন।

কুমিল্লার ঘটনার জের ধরে এবারের দুর্গোৎসবে দেশের বিভিন্ন স্থানে মন্দির ও পূজামণ্ডপে হামলা হয়েছে। সংঘর্ষে একাধিক প্রাণহানির ঘটনাও ঘটেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here