গলা-ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার উপায়

0
37
ফাইল ছবি।

ত্বকের পরিচর্যার ক্ষেত্রে, আমরা কত কিছুই না করে থাকি। ফেসিয়াল, স্ক্রাবিং, ক্লিনজিং, ময়েশ্চারাইজিং, ফেস প্যাক, ফেস মাস্ক, সানস্ক্রিন, সিরাম কোনও কিছুই বাদ যায় না।

মুখের এত পরিচর্যা সত্ত্বেও ঘাড় এবং গলা কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অবহেলিত থেকে যায়। সুন্দর-উজ্জ্বল মুখ, অথচ কালচে ঘাড় এবং গলা, ভাবলেই আত্মবিশ্বাস কোথাও যেন ম্লান হয়ে যায়।

কালচে ঘাড় এবং গলা হওয়ার প্রাথমিক কারণ হল, দুর্বল স্বাস্থ্যবিধি। তাছাড় প্রসাধনী দ্রব্যে থাকা রাসায়নিক, দূষণ, ডায়াবেটিস, প্রভৃতিও এর অন্যতম কারণ হতে পারে। তবে আর হতাশ হবেন না।

ঘরোয়া কিছু পদ্ধতিতেই আপনি গলা-ঘাড়ের কালচে স্পট হালকা করতে পারেন। তাহলে জেনে নিন ঘাড় এবং গলার কালো স্পট থেকে মুক্তি পাওয়ার কিছু সহজ উপায়।

১) অ্যালোভেরা জেলঃ অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ অ্যালোভেরা, ত্বকে পিগমেন্টেশন সৃষ্টিকারী এনজাইমের কার্যকলাপকে বাধা দেয় এবং ত্বকের বর্ণ হালকা করে। এছাড়া অ্যালোভেরা জেল ত্বককে পুষ্ট করার পাশাপাশি, হাইড্রেটেড রাখতেও অত্যন্ত সহায়ক। এর জন্য, ফ্রেশ অ্যালোভেরার পাতা কেটে, অ্যালোভেরা জেল বের করে নিন। তারপর ওই জেল ঘাড় এবং গলায় দিয়ে আলতো করে ম্যাসাজ করুন। তারপর ২০ মিনিট রেখে ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই প্রক্রিয়াটি আপনি নিয়মিত অনুসরণ করতে পারেন।

২) অ্যাপেল সাইডার ভিনেগারঃ অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার ত্বকের PH লেভেল বজায় রাখতে সহায়তা করে। এতে ম্যালিক অ্যাসিডের উপস্থিতি, ত্বকের মৃত কোষ দূর করে এবং ত্বক উজ্জ্বল করে তোলে। এই প্রতিকারটি করতে, প্রথমে দুই টেবিল চামচ অ্যাপেল সিডার ভিনেগারে চার টেবিল চামচ জল মিশিয়ে নিন। তারপর তাতে তুলো ভিজিয়ে ঘাড় এবং গলায় ভাল করে লাগিয়ে নিন। ১০ মিনিট রেখে, জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ভালো ফল পেতে, এই প্রক্রিয়াটি প্রতিদিন করা যেতে পারে।

৩) বেকিং সোডাঃ ত্বকের মৃত কোষ থেকে মুক্তি দিতে, বেকিং সোডা দুর্দান্ত কার্যকরী। বেকিং সোডা ময়লা অপসারণের পাশাপাশি ত্বককে ভেতর থেকে পুষ্ট করতেও অত্যন্ত সহায়ক। এই প্রতিকারটি করতে, প্রথমে দুই চামচ বেকিং সোডা নিয়ে তাতে সামান্য পরিমাণে জল মিশিয়ে, একটি পেস্ট তৈরি করে নিন। তারপর ঘাড় এবং গলায় পেস্টটি ভাল করে লাগিয়ে শুকিয়ে নিন। তারপর ভেজা হাতে এটা স্ক্রাব করে, জল দিয়ে ধুয়ে ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিন। কাঙ্ক্ষিত ফল পেতে প্রতিদিন এই প্রতিকারটি করা যেতে পারে।

৪) আলুর রসঃ আলুতে ব্লিচিং প্রপার্টি বর্তমান, যা ত্বকের বর্ণ হালকা করে। এছাড়াও, ডার্ক স্পট ও ব্রণর জন্য আপনি টমেটোও ব্যবহার করতে পারেন। এই প্রতিকারটি করতে, প্রথমে একটি ছোট আলু ঘষে, তার থেকে রস বের করে নিন। তারপর ওই রসে তুলো ভিজিয়ে, ঘাড়ে এবং গলায় ভাল করে লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৫) উপটানঃ ত্বকের রঙ উজ্জ্বল এবং হালকা করতে উবটান অত্যন্ত কার্যকরী। উবটান পিগমেন্টেশন কমাতেও সহায়তা করে এবং ঘাড়-গলার ত্বক উজ্জ্বল করে তোলে। এই প্রতিকারটি করতে, প্রথমে দুই টেবিল চামচ বেসন, ১/২ চা চামচ লেবুর রস, সামান্য হলুদ এবং পরিমাণমতো গোলাপ জল কিংবা দুধ নিয়ে, একটি ঘন পেস্ট তৈরি করে নিন। এই পেস্টটি ঘাড়ে এবং গলায় ১৫ মিনিট লাগিয়ে রেখে, জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ভাল ফল পেতে, সপ্তাহে দু’বার এই প্রতিকার করা যেতে পারে।

৬) দই দইয়ে প্রাকৃতিক এনজাইম উপস্থিত, যা লেবুর অ্যাসিডের সাথে মিশে কাঙ্খিত ফলাফল দেয়। তাছাড়া ত্বককে পুষ্টি যোগায় এবং মসৃণ রাখতেও সহায়তা করে। এই প্রতিকারটি করতে, দুই টেবিল চামচ দই এবং এক চা চামচ লেবুর রস নিয়ে ভাল করে মেশান। তারপর এটি ঘাড় এবং গলায় লাগিয়ে ১৫-২০ মিনিট রেখে, জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here